মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, ২০০২ সালের ১৪ মে মিঠাপুকুর উপজেলায় ওই কিশোরী তাঁর বোনের বাড়িতে বেড়াতে যায়। রাতে ওই কিশোরী বাড়ির পাশের নলকূপ থেকে পানি আনতে বাইরে বের হলে রফিকুল ইসলাম ও শাহ আলম তাঁকে জোর করে তুলে নিয়ে যান। এরপর তাঁরা ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করেন। পরে ওই কিশোরীর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে রফিকুল ও শাহ আলম পালিয়ে যান।

এ ঘটনায় ওই কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে আদালতে মামলা করেন। আদালতের বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে মিঠাপুকুর থানাকে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার আদেশ দেন। পরে তদন্ত শেষে একই বছরের ৩০ জুন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা (এসআই) খলিলুর রহমান দুই আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) খন্দকার রফিক হাসনাইন বলেন, মামলার ২০ বছর পর এ রায় ঘোষণা করা হলো। এ মামলায় ৮ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ ও জেরা শেষে আদালতের বিচারক দুই আসামিকে দোষী সাব্যস্ত করে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন