বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

প্রথম আলো: একটা ভিডিও বার্তায় মোনাফ সিকদার গুলি করার পেছনে মেয়রের হাত থাকার কথা বলেছেন। এটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়েছে...

নজিবুল ইসলাম: মোনাফ সিকদারের একটা ভিডিও আমরা ফেসবুকে দেখেছি, শুনেছি। আমরা যতটুকু জানি, ভিডিও বার্তা প্রকাশের পেছনে একটা রাজনৈতিক প্রতিহিংসা আছে। একটি প্রভাবশালী পক্ষ, যারা আগেও মেয়র মুজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে মিথ্যা অভিযোগ করে লেখালেখি করেছে।

প্রথম আলো: পৌর মেয়রকে হত্যাচেষ্টা মামলার আসামি করার পেছনে অন্য কোনো রাজনীতি বা কারণ দেখছেন?

নজিবুল ইসলাম: মামলার প্রধান আসামি করার পেছনের কারণ হচ্ছে মুজিবুর রহমানকে বিতর্কিত করা। সামনে জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন আছে। দলীয় অন্তঃকোন্দলও কাজ করছে। দলের অনেক প্রভাবশালীর সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক হওয়ার ইচ্ছা আছে। তা ছাড়া মেয়রের সঙ্গে দলীয় কিছু নেতার বিরোধও আছে, যেটি কিছুদিন আগে চকরিয়া পৌরসভা নির্বাচনের সময় প্রকাশ্য রূপ নিয়েছিল। কেন্দ্রীয় নেতাদের হস্তক্ষেপে সেই বিরোধের মীমাংসা করা হলেও বিরোধীপক্ষ এখনো বিভিন্নভাবে মেয়রকে বেকায়দায় ফেলার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত।

প্রথম আলো: পূর্বঘোষণা ছাড়া হঠাৎ সড়ক অবরোধের কারণে পর্যটকসহ সবার ভোগান্তি হয়েছে...

নজিবুল ইসলাম: মানুষের দুর্ভোগের কথা চিন্তা করে রাতে অবরোধ প্রত্যাহার করা হয়। নেতা-কর্মীরা গিয়ে সড়কের ব্যারিকেডগুলো সরিয়ে ফেলেন। তবে পৌরসভার কাউন্সিলর ও কর্মচারীরা মামলা প্রত্যাহার না হলে আজ সোমবার সকাল থেকে সব ধরনের নাগরিক সেবা বন্ধ রাখার পাশাপাশি আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। সে ক্ষেত্রে দলের কিছু করার নেই।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন