বিজ্ঞাপন

করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ দেশে আসার পর সংক্রমণ ঠেকাতে গত ২৬ মার্চ থেকে সারা দেশে বাস-ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দেয় সরকার। বাস-ট্রেন বন্ধ থাকলেও মানুষজন নাড়ির টানে গত ঈদে নানা দুর্ভোগ নিয়ে কর্মস্থল থেকে বাড়ি ফিরেছেন। ঈদ শেষে আবারও সেই একই ভোগান্তি আর কষ্ট নিয়ে তাঁরা কর্মস্থলে ফিরেছেন। এদিকে দীর্ঘ দুই মাস বন্ধ থাকার পর আজ থেকে গণপরিবহন চালুর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত দিয়েছে সরকার। তবে ট্রেন ও বাস চলার ক্ষেত্রে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক যাত্রী পরিবহনের নির্দেশ দিয়েছে সরকার।

আজ নগরের কামারপাড়া ঢাকা বাসস্ট্যান্ডে দেখা যায়, যাত্রীদের মাস্ক পরানোর ব্যাপারে তদারক করা হচ্ছে। বাসে ওঠার আগে প্রত্যেক যাত্রীর হাতে স্যানিটাইজার দেওয়া হয়। কাউন্টারগুলোতেও কড়া নজরদারি।

হানিফ পরিবহনের ব্যবস্থাপক আসাদুজ্জামান বলেন, অর্ধেক আসনে যাত্রী বসিয়ে বাস চালানোর সিদ্ধান্ত গতকাল বিকেলের দিকে আসে। তাই বাস চালু করতে তড়িঘড়ি করতে হয়েছে। এরপরও আজ সকালে কিছুটা কম যাত্রী নিয়ে বাস ছাড়তে হয়েছে। সকাল আটটা থেকে যেখানে এক ঘণ্টা পরপর বাস ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যেত, সেখানে বাস ও যাত্রী কম থাকায় দুই ঘণ্টা পরপর বাস ছাড়া হচ্ছে।

এদিকে সরকারি সিদ্ধান্তমতে, অর্ধেক যাত্রী নিয়ে ৬০ শতাংশ ভাড়ায় এসব বাস স্বাস্থ্যবিধি মেনেই চলার চেষ্টা করছে। রংপুর থেকে ঢাকার ৬০০ টাকার বাসভাড়া ৬০ শতাংশ বেশি ৯৬০ টাকা হওয়ার কথা থাকলেও এর থেকে ১৫০-২০০ টাকা কমেও ভাড়া নেওয়া হচ্ছে। যেহেতু প্রথম দিন যাত্রী কম। সেই সঙ্গে যাত্রীদের সবার মুখে মাস্ক ছিল। কর্তৃপক্ষ হাতে স্যানিটাইজার দিয়ে যাত্রীদের বাসে তোলার ব্যবস্থা করেছে। পুরোপুরি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাচল করছে বাসগুলো।
সকালে ঢাকা বাসস্ট্যান্ডে কথা হয় কয়েক যাত্রীর সঙ্গে। তাঁরা জানান, সরকারি নিয়ম অনুযায়ী বাসে অর্ধেক যাত্রী থাকছে। ৬০ শতাংশ বেশি বাসভাড়া হওয়ার কথা থাকলেও কিছুটা কম নেওয়া হচ্ছে। বাস ভাড়া বেশি নেওয়ার তেমন কোনো অভিযোগ নেই অধিকাংশ যাত্রীদের।

ঢাকার উদ্দেশে যাওয়া এক যাত্রী মোমিনুল ইসলাম বলেন, ‘এই কয়েক দিন আগে বিভিন্নভাবে ঢাকা যেতে পথে পথে নানা দুর্ভোগ হতো। প্রাইভেট কার–মাইক্রোতে ১ হাজার ৫০০ টাকা থেকে ১ হাজার ৮০০ টাকা পর্যন্ত খরচ হতো। এটি থেকে রেহাই পাওয়া গেল। এখন ৬০০ টাকার ভাড়া ৯৬০ টাকা হওয়ার কথা থাকলেও ৭৫০ টাকায় পেয়েছি।’

হানিফ পরিবহনের অন্য এক ব্যবস্থাপক হোসেন আবেদ আলী বলেন, অর্ধেক আসনের যাত্রী নিয়ে বাস চলাচল করছে। ভাড়া নিয়েও যাত্রীরা সন্তুষ্ট। সেই সঙ্গে স্বাস্থ্যবিধি মানার ব্যাপারে সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন