বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এলাকাবাসী জানান, ১৩ বছর আগে বর্ণালী মোড়ের পশ্চিম দিক দিয়ে রাজীব চত্বর হয়ে একটি বড় ড্রেন ছিল। রাস্তা নির্মাণের সময় সেই ড্রেনটি বন্ধ করা হয়। এর পর থেকেই এই এলাকায় সামান্য বৃষ্টি হলেই জলাবদ্ধতা তৈরি হয়। ঘণ্টার পর ঘণ্টা পানি জমে থাকে। যান চলাচলে সমস্যা হয়। লোকজন হেঁটে যেতে পারে না। তাঁরা দ্রুত জলাবদ্ধতা দূর করার আহ্বান জানান।

মো. কাউসার আলী নামের এক বাসিন্দা বলেন, নগরের অনেক এলাকার পানি এই এলাকা দিয়ে যায়। একসঙ্গে ড্রেনটি এত প্রেশার নিতে পারে না। এ কারণে পানি যেতে সময় লাগে। দীর্ঘ সময় মানুষজন বিপদে থাকে। স্থানীয় বাসাবাড়িতেও নিচতলায় পানি জমে থাকে। এলাকাটি জলাবদ্ধতা মুক্ত না করা গেলে যেকোনো সময় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। কেউ ড্রেনে পড়ে যেতে পারে।

বুধবার সন্ধ্যায় নগরের বর্ণালী মোড়ে গিয়ে দেখা যায়, রাস্তায় হাঁটুপানি জমে আছে। হাঁটুপানির মধ্যেই অটোরিকশা, মোটরসাইকেল অন্যান্য গাড়ি চলাচল করছে। কয়েক শিক্ষার্থীকে কাপড় গুটিয়ে পার হতে দেখা যায়। বিকেলে বৃষ্টি হলেও সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টা পর্যন্ত হাঁটুপানি ছিল রাস্তা ও আশপাশে।

মো. রনি নামের এক দোকানদার বলেন, রাজীব চত্বরের ওইদিকে একটি বড় ড্রেন ছিল। ওই এলাকায় রাস্তা করার সময় ড্রেনটি বন্ধ হয়ে যায়। আর এই এলাকাটি নিচু। ফলে সব এলাকার পানি এখানে এসে জমে যায়। তা ছাড়া ড্রেনগুলোও পরিষ্কার করা হয় না। ফলে অল্প বৃষ্টিতেই জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়।

সিটি করপোরেশনের ১০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্বাস আলী সরদার বলেন, ওই এলাকার জলাবদ্ধতা নিয়ে মানুষ বিরক্ত। ১৩ বছর আগে এর সঙ্গে সংযুক্ত একটি ড্রেন বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর থেকেই এই সমস্যা। তিনি কয়েকবার সিটি করপোরেশনকে এ ব্যাপারে বলেছেন। কিন্তু কোনো কাজ হয়নি। আবারও সিটি করপোরেশনের প্রকৌশল দপ্তরকে বিষয়টি জানাবেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন