স্থানীয় বাসিন্দা লোকমান হাকিম বলেন, রোববার দুপুরে রান্নাঘরে কাজ করছিলেন হাবিবার মা। সেখানে মায়ের সঙ্গে খেলছিল হাবিবা। একপর্যায়ে সবার অজান্তে সে ঘর থেকে বের হয়ে পাশে থাকা পুকুরে পড়ে যায়। পরে ওই পুকুরে বাড়ির এক ব্যক্তি গোসল করতে নামলে হাবিবার লাশ পানিতে ভাসতে দেখে উদ্ধার করেন তিনি। এরপর স্থানীয় পল্লিচিকিৎসকের কাছে তাকে নিয়ে গেলে তিনি শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. নুরুন্নবী বলেন, শিশুটিকে দাফনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। কোরবানির ঈদে শিশুটি মারা যাওয়ায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন