default-image

মানিকগঞ্জ জেলা বিএনপির দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে সভাপতি পদে আফরোজা খান রিতা ও সাধারণ সম্পাদক পদে এস এ কবির জিন্নাহ নির্বাচিত হয়েছেন। গতকাল রোববার সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে কাউন্সিলরদের ভোটে তাঁরা নির্বাচিত হন।

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কমিটির সদস্য আফরোজা খান এর আগেও জেলা বিএনপির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। আর সর্বশেষ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্যসচিব ছিলেন এস এ কবির জিন্নাহ।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, দলীয় অভ্যন্তরীণ কোন্দলের কারণে প্রায় ৩১ বছর পর এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সর্বশেষ ২০১৯ সালে ৬৩ সদস্যবিশিষ্ট মানিকগঞ্জ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। তিন মাসের মধ্যে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। উপজেলা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড কমিটি গঠন করা হলেও করোনার সংক্রমণসহ দলীয় মতবিরোধের কারণে জেলা বিএনপির সম্মেলন করা যায়নি। পরে গতকাল সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। জেলা শহরের খোন্দকার নূরুল হোসেন ল একাডেমি প্রাঙ্গণে সম্মেলনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়। তবে পুলিশ প্রশাসনের অনুমতি না পাওয়ায় শহরের উত্তর সেওতা এলাকায় এই সম্মেলন হয়। সম্মেলনকে ঘিরে দলীয় নেতা-কর্মীদের মধ্যে উৎসাহ ও উদ্দীপনা দেখা দেয়।

বিজ্ঞাপন

সম্মেলনের প্রথম পর্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। সম্মেলনের উদ্বোধন করেন দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে গুম, খুন, বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড বেড়েছে। বিরোধী মত কেউ প্রকাশ করলে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। এই সরকারের সময়ে চাল, তেল, পেঁয়াজসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম বেড়েছে। মানুষের বাকস্বাধীনতা ও সংবাদপত্রের স্বাধীনতা নেই। এরপরও সরকার বলছে মানুষ ভালো আছে।

সম্মেলনে গতকাল সন্ধ্যায় দ্বিতীয় অধিবেশন শুরু হয়। জেলার সাতটি উপজেলা এবং দুটি পৌরসভার মোট ৪৫ জন কাউন্সিলর ভোট দেন। আফরোজা খান ছাড়াও জেলা বিএনপির সভাপতি পদপ্রত্যাশী ছিলেন আতাউর রহমান আতা। কাউন্সিলরদের ভোটে আফরোজা খান পান ৪২ ভোট। তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী আতিউর রহমান পান মাত্র ৩ ভোট। এ ছাড়া সাধারণ সম্পাদক পদে এস এ কবির জিন্নাহ ২০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। এ পদে মোতালেব হোসেন ১৯, তোজাম্মেল হক ৪ এবং আবদুল হামিদ ২ ভোট পান।

আফরোজা খান বলেন, সম্মেলনে কাউন্সিলরদের ভোটে তিনি সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন। এতে দলের প্রতি আনুগত্য এবং নেতা-কর্মীদের প্রতি দায়িত্ব আরও বেড়ে গেল। দ্রুত সময়ের মধ্যে দলের পূর্ণাঙ্গ জেলা কমিটি গঠন করা হবে। কমিটিতে যোগ্য, ত্যাগী ও মেধাবীরা স্থান পাবেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন