বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ঢাকা রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকার (ডিইপিজেড) ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল রাতে আঁখি মণি তাদের টিনশেড ঘরের পাশের অপর দুই শিশুর সঙ্গে খেলছিল। এ সময় আঁখির মা–বাবা পোশাক কারখানায় ছিলেন। রাত আটটার দিকে পাশের একটি কক্ষে সিলিন্ডার গ্যাসের চুলা থেকে আগুন লাগে। মুহূর্তে আগুন অন্য কক্ষগুলোতে ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় অপর দুই শিশু দৌড়ে বাইরে চলে গেলেও আঁখি ভয়ে তাদের কক্ষের খাটের নিচে লুকায়। পরে সেখানেই সে দগ্ধ হয়ে মারা যায়। এদিকে খবর পেয়ে ডিইপিজেড ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে আধা ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে এবং আঁখির দগ্ধ লাশ উদ্ধার করে। বাড়িটির ১৩টি কক্ষের মধ্যে ৫টি কক্ষ সম্পূর্ণ ও ৮টি কক্ষ আংশিক পুড়ে গেছে। এতে ৮-১০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

ডিইপিজেড ফায়ার সার্ভিসের ওয়্যারহাউস ইন্সপেক্টর জিহাদ হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, পাশের একটি কক্ষের সিলিন্ডার গ্যাসের চুলা থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে। আঁখির দগ্ধ লাশ উদ্ধার করে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন