default-image

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে সরকারি একটি আশ্রয়ণ প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনে স্থানীয় একটি চক্র বাধা দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই প্রকল্প এলাকায় উপজেলা প্রশাসনের একটি সাইনবোর্ড ভেঙে ফেলার খবরে ঘটনাস্থলে গিয়ে হামলার শিকার হয়েছেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) (এসি ল্যান্ড) নাসরিন চৌধুরী। এ সময় দখলদারদের ছোড়া ইটে এক পুলিশ সদস্য, গাড়িচালক ও এসি ল্যান্ড আহত হন। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এসি ল্যান্ডের ব্যবহৃত গাড়ি।

উপজেলার সীমান্তবর্তী উসলামপুর ইউনিয়নের রাজকান্দি এলাকায় সোমবার দুপুরে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করার কথা ছিল মৌলভীবাজার-৪ আসনের সাংসদ এম এ শহীদের। তার আগে সকালে এ ঘটনা ঘটে। তবে শেষ পর্যন্ত পুলিশি পাহারায় সংক্ষিপ্ত পরিসরে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, ‘দুর্যোগসহনীয় গৃহনির্মাণ’ প্রকল্পের আওতায় ‘আশ্রয়ণ-২’ প্রকল্পের ২০টি গৃহনির্মাণ কাজের জন্য রাজকান্দি এলাকার সরকারি খাসজমি বের করে স্থান নির্ধারণ করা হয়েছিল। স্থানীয় সাংসদ এম এ শহীদ সোমবার প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন বলে কয়েক দিন ধরে সেখানে কাজ করে প্রকল্পের একটি সাইনবোর্ড স্থাপন করা হয়। সোমবার সকালেই অবৈধ দখলদারদের একটি চক্র স্থাপিত সাইনবোর্ড ভেঙে মাটিতে ফেলে দেয়।

খবর পেয়ে সোমবার সকালে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন নাসরিন চৌধুরী। এ সময় দখলদারদের চক্রটির সঙ্গে তাঁর বাক্‌বিতণ্ড হয়। একপর্যায়ে তাঁর গাড়ি লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়লে কাচ ভেঙে যায়। এ সময় হামলায় নাসরিন চৌধুরী, তাঁর গাড়িচালক হাসান মিয়া ও কমলগঞ্জ থানার নারী পুলিশ সদস্য সেলিনা আক্তার আহত হন। আহত পুলিশ সদস্য সেলিনা আক্তারের মাথা ফেটে গেলে তাঁকে প্রথমে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। পরে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

বিজ্ঞাপন

এ ঘটনার পর এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েনের মাধ্যমে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা হয়। এরপর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আশেকুল হকের সভঅপতিত্বে সেখানে সংক্ষিপ্ত পরিসরে আশ্রয়ণ প্রকল্পের গৃহনির্মাণ কাজের ভিত্তি স্থাপন করেন সাংসদ এম এ শহীদ। উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আরিফুর রহমান, কমলগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা মো. আসাদুজ্জামান ও ইসলামপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবদুল হান্নান।

default-image

ইউএনও আশেকুল হক বলেন, হামলায় এসি ল্যান্ড, তাঁর গাড়িচালক ও এক নারী পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। তাঁদের চিকিৎসা চলছে। এ ঘটনায় একটি নিয়মিত মামলা হবে বলে জানান তিনি।

কলমলগঞ্জ থানার ওসি আরিফুর রহমান সরকারি কাজে বাধাদানকারীদের হামলায় তিনজন আহত হওয়ার তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, আহত নারী পুলিশ সদস্যের মাথায় ৯টি সেলাই দিতে হয়েছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

মৌলভীবাজার-৪ আসনের সাংসদ এম এ শহীদ বলেন, গৃহহীন ও ভূমিহীনদের জন্য গৃহনির্মাণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একটি উদ্যোগ। সরকারি কাজে বাধা দিয়ে দুষ্কৃতকারীরা হামলা করে একজন নারী পুলিশ সদস্যসহ দুজনকে আহত করেছে। সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দায়ীদের চিহ্নিত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রশাসনকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

মন্তব্য পড়ুন 0