বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) মোল্লা মোহাম্মদ শাহীন জানান, রুমিন ফারহানা বিএনপির সমাবেশে যোগ দিতে আশুগঞ্জ ছেড়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন।

এর আগে রুমিন ফারহানা অভিযোগ করে বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আসার পথে ভৈরব টোল প্লাজায় তাঁকে এক ঘণ্টা আটকে রাখে পুলিশ। অনেক কথা-কাটাকাটির পর সৈয়দ নজরুল ইসলাম সেতু (ভৈরব-আশুগঞ্জ সড়ক সেতু) দিয়ে তিনি আশুগঞ্জ উপজেলার দিকে রওনা হন। পরে আশুগঞ্জে সেতুর ওপরই পুলিশ আবার তাঁকে আটক করে। মূলত পুলিশ তাঁকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় যেতে দিচ্ছে না।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় একই স্থানে জেলা বিএনপি ও ছাত্রলীগের সমাবেশ ডাকায় পৌর এলাকায় ১৪৪ ধারা চলছে। তাই সদর উপজেলার নাটাই উত্তর ইউনিয়নের বটতলী বাজারে সমাবেশ করছে বিএনপি। ইতিমধ্যেই সেখানে রুমিন ফারহানা ছাড়াও বিএনপির কুমিল্লা অঞ্চলের দায়িত্বে থাকা সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক আহমেদ, সহসাংগঠনিক সম্পাদক সায়েদুল হক, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য হাফিজুর রহমান মোল্লা উপস্থিত হয়েছেন।

খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার জন্য বিদেশ পাঠানোর দাবিতে আজ বেলা দুইটার দিকে ফুলবাড়িয়া কনভেনশন সেন্টারের সামনে সমাবেশ ডেকেছিল জেলা বিএনপি। পরে একই স্থানে বেলা তিনটায় ছাত্রলীগও ছাত্রসমাবেশের ডাক দেয়। এতে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতির আশঙ্কায় সেখানে ১৪৪ ধারা জারি করেন জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খান। পরে ১৪৪ ধারার আওতাধীন এলাকার বাইরে গিয়ে সমাবেশ করছে বিএনপি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন