default-image

হবিগঞ্জ শহরের চৌধুরী বাজার এলাকায় আজ বৃহস্পতিবার ব্যাটারিচালিত ইজিবাইকের স্ট্যান্ড দখল নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে ৩০ জন আহত হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে পাঁচজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ছুড়ে ও লাঠিপেটা করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

আহত ব্যক্তিদের মধ্যে তোরাব আলী (৪৫) ও শেখ সেখুল (৩০) নামের দুজনকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মধু মিয়া (২৮), মো. রশিদ (৪৮) ও মো. আশিক (৩০) নামের তিনজনকে হবিগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহত অন্যরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। তাঁরা সবাই উমেদনগর গ্রামের।

বিজ্ঞাপন
default-image

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, হবিগঞ্জ শহরের চৌধুরী বাজার খোয়াই সেতু এলাকায় উমেদনগর গ্রামের শাহ হান্নানসহ কয়েকজন ইজিবাইকস্ট্যান্ড পরিচালনা করে আসছেন। আজ দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে একই এলাকার মোক্তার হোসেনসহ কয়েকজন স্ট্যান্ডটি দখল করেন। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। এলাকার লোকজন তখন সংঘর্ষ থামান।

বেলা দুইটার দিকে উভয় পক্ষের লোকজন আবার সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এ সময় উভয় পক্ষের লোকজন ইট–পাটকেল, লাঠিসোঁটা ও ধারালো অস্ত্র ব্যবহার করেন। সংঘর্ষে দুই পক্ষের প্রায় ৩০ জন আহত হন। আহত ব্যক্তিদের মধ্যে ৭ জনকে প্রথমে হবিগঞ্জ ২৫০ শয্যার আধুনিক হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে তোরাব আলী ও শেখ সেখুলকে সেখান থেকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। কাঁদানে গ্যাসের আটটি শেল ও লাঠিপেটা করে তারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। পরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রবিউল ইসলামসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাসুক আলী বলেন, ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। কোনো পক্ষই থানায় অভিযোগ করেনি।

মন্তব্য পড়ুন 0