বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জব্বর মিয়ার পরিবারের অভিযোগ, আজ দুপুরে মোহাম্মদ জব্বর শহরের বড় বাজারে ঈদ উপলক্ষে কেনাকাটা করছিলেন। বাজারটির প্রধান সড়কে অবস্থানের সময় চার–পাঁচজন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি একটি ব্যক্তিগত গাড়ি থেকে নেমে তাঁকে ওই গাড়িতে উঠিয়ে শহরের মদনগঞ্জ সড়কের একটি নির্জন স্থানে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে সেখানে তাঁকে উপর্যুপরি কুপিয়ে সড়কে ফেলে রেখে পালিয়ে যান দুর্বৃত্তরা। পরে স্থানীয় লোকজন আহত জব্বর মিয়াকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে নরসিংদী সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে যান। সেখানকার চিকিৎসক তাঁকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। পরে তাঁকে একটি অ্যাম্বুলেন্সে করে রাজধানী ঢাকায় নিয়ে যান তাঁর পরিবারের সদস্য ও স্বজনেরা।

নরসিংদী সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা লোপা চৌধুরী বলেন, ‘আহত জব্বর মিয়ার হাত, পা, মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো কিছু দিয়ে আঘাতের গভীর ক্ষত পাওয়া গেছে। আমরা তাঁকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করি। এরই মধ্যে আহত ব্যক্তিকে নিয়ে তাঁর পরিবারের সদস্য ও স্বজনেরা রওনা হয়েছেন।’

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আহত জব্বর মিয়া আলোকবালীতে নির্বাচনী সহিংসতায় তিনজন নিহতের মামলার আসামি। এ ছাড়া চাঁদাবাজি, বিস্ফোরক ও অবৈধ অস্ত্রের ব্যবহারসহ আরও তিন মামলার আসামি তিনি। তবে তাঁর স্বজনেরা বলছেন, তিনি বর্তমানে সব মামলায় জামিনে আছেন। ধারণা করা হচ্ছে, প্রতিপক্ষের লোকজন এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারেন।

জানতে চাইলে নরসিংদী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. সওগাতুল আলম বলেন, ‘ঠিক কারা এবং কী কারণে তাঁকে এভাবে কুপিয়ে আহত করল, তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। কারা এর সঙ্গে জড়িত, তাঁদের চিহ্নিত করতে পুলিশি তদন্ত শুরু হয়েছে। আমরা এখনো কোনো লিখিত অভিযোগ পাইনি, পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন