বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

র‍্যাব জানায়, গতকাল রাতে গোপন সংবাদের মাধ্যমে র‍্যাব জানতে পারে, টেকনাফের সীমান্তবর্তী এলাকা দিয়ে ইয়াবার একটি বড় চালান মাদক কারবারিদের মাধ্যমে কুতুপালং ও পালংখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ঢুকবে। এই তথ্যের ভিত্তিতে র‍্যাব গোয়েন্দা তৎপরতা বাড়িয়ে দেয়।

এরপর আনুমানিক সাড়ে আটটার দিকে সন্দেহজনক কয়েকজনকে বালুখালী সেতুর নিচ দিয়ে কয়েকটি বস্তা নিয়ে পার হতে দেখে র‍্যাব। র‍্যাবের অবস্থান টের পেরে মাদক কারবারিরা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় ওই চক্রের একজনকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব। পরে ওই ব্যক্তির সঙ্গে থাকা ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার ভেতরে থাকা কয়েকটি বস্তা থেকে পাঁচ লাখ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

আবু সালাম চৌধুরী বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তার ব্যক্তি জানিয়েছেন যে তিনি দীর্ঘদিন ধরে এ পথ ব্যবহার করে বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ইয়াবা পাচার করে আসছিলেন। ছৈয়দুল আমিন মাদক মামলার পলাতক আসামি। তাঁর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন