default-image

কক্সবাজারের উখিয়ার রোহিঙ্গা শিবির থেকে ১১ জনকে গ্রেপ্তারের কথা জানিয়েছে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন)। আজ সোমবার দুপুর ১২টার দিকে আদালতের মাধ্যমে তাঁদের কারাগারে পাঠানো হয়।

পুলিশের দাবি, গ্রেপ্তারকৃতরা সন্ত্রাসী। তাঁরা শিবিরের ব্লক-বি/৬-এর রোহিঙ্গা হামিদ উল্লাহর ছেলে মোহাম্মদ এয়াকুবকে (৪০) অপহরণের চেষ্টা চালান। পরে এপিবিএন সদস্যরা অভিযান চালিয়ে ধারালো অস্ত্রসহ তাঁদের গ্রেপ্তার করেন। তাঁদের বিরুদ্ধে জেলার বিভিন্ন থানায় অস্ত্র ও মাদকের একাধিক মামলা আছে।

গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন উখিয়ার পালংখালী নলবনিয়া এলাকার ওবায়ুর (৩০), ইমরান হোসেন ওরফে ইরাইন্যা ডাকাত (২৮), আবদুল রশিদ (৩০), মো. আরিফ (২৯), পালংখালী এলাকার আবদুল হামিদ (২৮), আবদুল হক (২০), শফিউল্লাহকাটা এলাকার রিপন (২৪), মিজান (২২), মোজাহারখোলা এলাকার নূর মোহাম্মদ (২১), পালংখালী বাদীতলা এলাকার সিরাজুল ইসলাম (২২) ও কক্সবাজার পেকুয়ার মো. হেলাল (৩০)।

১৬ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নিরাপত্তা দায়িত্বে থাকা এপিবিএন পুলিশ ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল হক বলেন, উখিয়ার পালংখালী ১৬ নম্বর শফিউল্লাহ কাটা রোহিঙ্গা ক্যাম্পে থেকে স্থানীয় ও রোহিঙ্গাদের বাড়িঘর ভেঙে লুটপাটের সময় অস্ত্রসহ তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে গ্রেপ্তার হওয়া ১১ সন্ত্রাসী অপহরণ চক্রের সক্রিয় সদস্য বলে দাবি করেন উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি ) আহমদ মনজুর মোরশেদ। তিনি বলেন, তাঁদের বিরুদ্ধে কক্সবাজারের বিভিন্ন থানায় অস্ত্র ও মাদকের একাধিক মামলা আছে। তাঁরা দীর্ঘদিন ধরে রোহিঙ্গা ক্যাম্পকেন্দ্রিক মাদক, অপহরণসহ বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে জড়িত। তাঁদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন