বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিজিবি জানিয়েছে, ঘটনাস্থল থেকে ৫০ হাজার ইয়াবা বড়ি, একটি দেশীয় তৈরি শটগান ও দুটি কার্তুজ জব্দ করা হয়েছে।

লেফটেন্যান্ট কর্নেল আলী হায়দার আজাদ আহমেদ বলেন, বিজিবির কাছে সংবাদ ছিল মাদক কারবারিরা মিয়ানমার থেকে বিপুল পরিমাণের ইয়াবার চালান নিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করবে। এ জন্য করইবুনিয়া এলাকার ধানখেতের পাশে অবস্থান নেন বিজিবির একদল সদস্য। একপর্যায়ে চার থেকে পাঁচজনের একটি মাদক কারবারি দল পাহাড়ি এলাকা দিয়ে বাংলাদেশে আসে। এ সময় চ্যালেঞ্জ করা হলে তারা দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে বিবিজির টহল দলকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়তে শুরু করে। এতে বিজিবিও পাল্টা গুলি ছুড়ে। অন্য ইয়াবা কারবারিরা মিয়ানমারের অভ্যন্তরে পালিয়ে যায়।

আলী হায়দার আজাদ আহমেদ আরও বলেন, গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে ওই ব্যক্তির কাছে তাঁর প্রাথমিক পরিচয় জানার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু তিনি কোনো তথ্য দেননি। পুলিশ লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।

উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা বলেন, হাসপাতালে আনার আগেই ওই ব্যক্তি মারা গেছেন। তাঁর শরীরে গুলির চিহ্ন রয়েছে। হাসপাতালে বিজিবির এক সদস্যকে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন