বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) মৌলভীবাজার জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান বলেন, ‘আমরা এই নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি না। অংশ নেব কীভাবে? দিনের ভোট রাতে হয়ে যায়, ভোটারদের নির্বিঘ্নে ভোট দিতে দেওয়া হয় না। এই অগণতান্ত্রিক নির্বাচনে ভোটারদের কি নিশ্চয়তা দিতে পারবেন ভোটে যাওয়ার? বিএনপি নির্বাচনে যাচ্ছে না।’

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক জলি পাল বলেন, এই উপনির্বাচন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি বর্জন করেছে। তারা প্রার্থী দেবে না। নির্বাচনে কাউকে সমর্থনও দেবে না। তাদের আগের অভিজ্ঞতা রয়েছে, বাংলাদেশে সুষ্ঠু নির্বাচন হয় না। সব সময় কারচুপি হয়।

বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) জেলা শাখার সদস্য ও শ্রীমঙ্গল উপজেলার সমন্বয়কারী আবুল হাসান বলেন, এই মুহূর্তে প্রার্থী দেওয়ার বাস্তবতা তাদের নেই। আর সামর্থ্য থাকলেও তারা এই নির্বাচনে অংশ নিত না। কারণ, এখন যে নির্বাচন কমিশনার ও তাদের যে প্রহসনের নির্বাচন, তারা সেখানে অংশ নিতে চায় না।

জাসদ (ইনু) শ্রীমঙ্গল উপজেলা শাখার সভাপতি হাজি এলেমান কবির বলেন, ‘আমাদের নেতা–কর্মী ও অর্থনৈতিক সংকটের কারণে আমরা এই নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি না। তবে আমরা ভোট দিব।’

মৌলভীবাজার জেলা নির্বাচন অফিসার ও উপনির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন বলেন, তিনি দুই বছর ধরে এখানে বিভিন্ন নির্বাচন পরিচালনা করেছেন। সবগুলো সুষ্ঠু হয়েছে। এবারও তাঁরা একটি সুষ্ঠু নির্বাচন উপহার দেবেন। কোনো অনিয়ম হবে না।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন