বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

৫ নভেম্বর রাতে শহরতলির লিংক রোড এলাকার কার্যালয়ে বৈঠক করার সময় অস্ত্রধারীদের গুলিতে আহত হন কক্সবাজার জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি জহিরুল ইসলাম সিকদার এবং তাঁর ছোট ভাই স্থানীয় ঝিলংজা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি সদস্য কুদরত উল্লাহ সিকদার। প্রথমে দুজনকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে ওই দিন রাতেই দুজনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ৭ নভেম্বর দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় জহিরুলের মৃত্যু হয়।

গতকাল বিকেলে কক্সবাজার সৈকতের লাবণী পয়েন্টে ট্যুরিস্ট পুলিশের কার্যালয় চত্বরে বাহিনীর অষ্টম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘কক্সবাজারে রক্তের হোলি খেলা আর চলতে দেওয়া যাবে না। এটি ট্যুরিস্ট প্লেস। এখানে টুরিস্টরা আসবে। আমরা শুনেছি, এখানে কয়েকজনের প্রাণহানি হয়েছে। আর কোনো সহিংসতা, কোনো প্রাণহানি যেন এখানে না হয়। আমরা কোনো সন্ত্রাসী দেখতে চাই না, রক্তপাত দেখতে চাই না।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন