বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

র‌্যাব-১৫ কক্সবাজারের সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আবু সালাম চৌধুরী বলেন, গ্রেপ্তার মোহাম্মদ আশিক কিশোর গ্যাংয়ের সঙ্গে জড়িত। এর আগেও তাঁর বিরুদ্ধে ফাঁদে ফেলে কিশোরী ধর্ষণের অভিযোগ আছে। আশিক কক্সবাজার পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের নজরুল ইসলামের ছেলে।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শেখ মুনীর উল গীয়াস বলেন, শহরের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে স্কুলছাত্রী ধর্ষণ মামলার দুই আসামি মো. কামরুল ও হোটেল ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ শাহীনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

মামলার এজাহার অনুযায়ী, ১৩ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় বাড়িতে ফেরার পথে আশিকসহ চার যুবক ওই ছাত্রীকে গাড়িতে তুলে অপহরণ করেন। পরে তাকে সৈকতের মমস গেস্ট হাউসে নিয়ে ধর্ষণ করা হয়। ১৫ ডিসেম্বর রাতে একটি গাড়িতে করে ভুক্তভোগীকে তার বাড়ির সামনে রেখে গা ঢাকা দেন অভিযুক্ত ব্যক্তিরা। এরপর ওই ছাত্রীকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের ওয়ান–স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন