default-image

কক্সবাজার জেলা থেকে বদলি হয়ে সিলেট রেঞ্জে আসা ৪৬৫ জন পুলিশ সদস্যের মধ্যে লটারি করে সিলেট, সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার ও হবিগঞ্জ জেলায় পদায়ন করা হয়েছে। রোববার বিকেলে সিলেট পুলিশ লাইনসের শহীদ এসপি শামছুল হক মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে লটারি করে তাদের পদায়ন করা হয়। সিলেট রেঞ্জ পুলিশ সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায়।

পুলিশ সূত্র জানায়, কক্সবাজারের টেকনাফে অবসরপ্রাপ্ত মেজর রাশেদ হত্যার ঘটনার পরপরই ওই জেলার সব পুলিশকে বদলি করা হয়। পরিদর্শক থেকে কনস্টেবল পদমর্যাদার ৪৬৫ জনকে সিলেট রেঞ্জে বদলি করা হলে তাঁদের পদায়ন লটারির মাধ্যমে করার সিদ্ধান্ত হয়। সিলেট রেঞ্জ পুলিশের অতিরিক্ত উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মফিজ উদ্দিন আহমেদের উপস্থিতি লটারি করে পদায়ন করা হয়েছে।

পুলিশের ওই সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কক্সবাজার থেকে সিলেট রেঞ্জে আসা পুলিশ সদস্যদের উদ্দেশে বিশেষ ব্রিফিংয়ের আয়োজন করা হয়। সিলেট রেঞ্জ ডিআইজি কার্যালয়ের পুলিশ সুপার জেদান আল মুসার সঞ্চালনায় ব্রিফিংয়ে প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন ডিআইজি মফিজ উদ্দিন আহমেদ, বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন অতিরিক্ত ডিআইজি জয়দেব কুমার ভদ্র। স্বাগত বক্তব্য দেন সিলেট জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন। এ সময় সিলেট রেঞ্জ ডিআইজি কার্যালয়ের পুলিশ সুপার নুরুল ইসলাম, শাহীনুল আলম খানসহ পদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

কক্সবাজার থেকে সিলেট রেঞ্জে আসা পুলিশ সদস্যদের স্বাগত জানিয়ে তাঁদের সর্বোচ্চ পেশাদারি ও আন্তরিকতা নিয়ে সিলেট রেঞ্জের জনসাধারণকে সেবা করার নির্দেশ দেন সিলেটের ডিআইজি মফিজ উদ্দিন আহমেদ। তিনি বলেন, ‘অতীতের ভুলত্রুটি থেকে শিক্ষা নিয়ে সবাইকে নতুন উদ্যমে মানুষের সেবায় আত্মনিয়োগ করতে হবে।’
অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে ৪৬৫ জন পুলিশ সদস্যদের পদায়নে লটারি হয় করা হয়। লটারির মাধ্যমে সিলেট, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ ও সুনামগঞ্জ জেলায় কর্মস্থল নির্ধারণ করে তা ঘোষণা করেন ডিআইজি।

লটারির মাধ্যমে একসঙ্গে পদায়নের বিষয়ে ডিআইজি মফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘আইজিপি মহোদয়ের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় বাংলাদেশ পুলিশকে আধুনিক ও জনবান্ধব হিসেবে গড়ে তুলতে বদলি, নিয়োগ ও পদোন্নতির ক্ষেত্রে শতভাগ স্বচ্ছতা নিশ্চিত করা হচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে ৪৬৫ জন পুলিশ সদস্যকে লটারির মাধ্যমে বদলি করে তাৎক্ষণিক অফিস আদেশ প্রদান করা হয়।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন