default-image

শিক্ষার্থীদের করোনাকালীন এক বছরের বেতন-ফি মওকুফ, মেসভাড়া কমানো, ইন্টারনেটের দাম কমানো এবং বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কর্মরতদের জন্য রাষ্ট্রীয় প্রণোদনা ঘোষণাসহ নানা দাবিতে নারায়ণগঞ্জে সমাবেশ ও মানববন্ধন হয়েছে। শনিবার প্রগতিশীল ছাত্রজোট ও ছাত্র ফেডারেশন নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখা পৃথক আয়োজনে এসব দাবি জানায়।

বেলা ১১টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে সমাবেশ করে প্রগতিশীল ছাত্রজোট। সমাবেশ থেকে তারা শিক্ষার্থীদের এক বছরের বেতন ফি ও মেসভাড়া মওকুফ, নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধে কার্যকর আইন প্রণয়ন এবং বেসরকারি শিক্ষকদের বেতন পরিশোধের জন্য রাষ্ট্রীয় বিশেষ বরাদ্দের দাবি জানান।

ছাত্র ইউনিয়ন নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি শুভ বণিকের সভাপতিত্বে সংগঠনের শহর কমিটির সভাপতি চিত্রা ঘোষ, ছাত্রফ্রন্ট জেলা সভাপতি সুলতানা আক্তার, সাধারণ সম্পাদক বেলাল হুসাইনসহ নেতা–কর্মীরা সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন
default-image

একই সময়ে চার দফা দাবিতে চাষাঢ়া শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে মানববন্ধনের আয়োজন করে ছাত্র ফেডারেশন। মানববন্ধন থেকে শিক্ষার্থীদের এক বছরের বেতন-ফি মওকুফ, শিক্ষার্থীদের অর্ধেক মেসভাড়া মওকুফ, ইন্টারনেটের বিল কমানো এবং বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কর্মরতদের বেতন পরিশোধের জন্য প্রণোদনা ঘোষণার দাবি জানান তাঁরা।

ছাত্র ফেডারেশন জেলা শাখার সভাপতি শুভ দেবের সভাপতিত্বে সংগঠনের মহানগর শাখার আহ্বায়ক ফারহানা মুনাসহ নেতা–কর্মীরা মানববন্ধনে অংশ নেন।

শুভ দেব বলেন, একদিকে করোনা নিয়ে সরকার উদাসীন, অন্যদিকে এর ভয়াবহতার কারণে শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবন নষ্ট হচ্ছে। তাদের অভিভাবকেরা কাজ হারিয়ে আর্থিক সংকটে থাকলেও ক্লাস না করেই বেতন–ফি দিতে হচ্ছে। পাশাপাশি অনলাইন ক্লাস করতে গিয়ে ইন্টারনেট ও বিভিন্ন ডিভাইসের পেছনে অতিরিক্ত অর্থ ব্যয় করতে হচ্ছে। বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে কর্মরত ব্যক্তিরা বেতন পাচ্ছেন না। সব মিলিয়ে করোনার এই সময়ে শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকদের জীবনে নানা সংকট তৈরি করছে। এই সংকট থেকে বাঁচতে সরকারের প্রতি করোনাকালীন বিশেষ প্রণোদনা ঘোষণার দাবি জানাচ্ছি। রোববার চার দফা দাবি নিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে স্মারকলিপি পেশ করা হবে বলে জানান তিনি।

মন্তব্য করুন