default-image

করোনার ভারতীয় ধরন পরীক্ষার জন্য ভারতফেরত আটজনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে সাতজন পালিয়ে যাওয়ার পর হাসপাতালে ফেরত এনে ভর্তি করা রোগী। আরেকজন ভারত থেকে আসা।

যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল সূত্র জানায়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনা অনুযায়ী ভিন্ন দুটি পরীক্ষাগারে করোনার ভারতীয় ধরনের নমুনা পরীক্ষা করা হবে। পরে এ বিষয়ে প্রাপ্ত ফল জানানো হবে। করোনাভাইরাসের ভারতীয় নতুন ধরন পরীক্ষার জন্য পাঁচ দিনের মতো সময় লাগে।

সূত্র জানায়, গত মঙ্গলবার আটজনের নমুনা সংগ্রহ করে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনোম সেন্টারে পাঠানো হয়। পরে গত বৃহস্পতিবার তাঁদের নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকার রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটে (আইইডিসিআর) পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

হাসপাতাল সূত্র জানায়, গত ১৮ থেকে ২৪ এপ্রিলের মধ্যে করোনায় সংক্রমিত সাতজন যশোরের বেনাপোল স্থলবন্দর হয়ে দেশে আসেন। এসব করোনা রোগীর মধ্যে ১৮ এপ্রিল একজন, ২৩ এপ্রিল পাঁচজন ও ২৪ এপ্রিল একজন আসেন। তাঁদের জরুরি বিভাগ থেকে হাসপাতালের তৃতীয় তলায় করোনা ওয়ার্ডে পাঠানো হয়। তাঁরা ওয়ার্ডে না গিয়ে সেখান থেকে পালিয়ে যান। গত রোববার বিষয়টি জানাজানি হয়। ভারতে করোনাভাইরাসের একটি নতুন ধরন শনাক্ত হওয়ায় পালানোর এ বিষয় আতঙ্কের সৃষ্টি করে। পরে ভারত থেকে আসা আরেকজনের করোনা শনাক্ত হয়।

যশোর সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মীর আবু মাউদ বলেন, হাসপাতালে ভর্তি ভারতফেরত একজনের পরিবারের ১৮ সদস্যকে শনাক্ত করা হয়। তাঁদের নমুনা সংগ্রহ করে করোনা পরীক্ষার জন্য যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনোম সেন্টারে পাঠানো হয়। গতকাল তাঁদের করোনা পরীক্ষার প্রতিবেদনে সবাই করোনা নেগেটিভ।

যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক দিলীপ কুমার রায় বলেন, আলাদা দুটি পরীক্ষাগারে আটজনের করোনা ও করোনাভাইরাসের ভারতীয় নতুন ধরন পরীক্ষা করা হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন