default-image

ময়মনসিংহে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ১৯ জোড়া ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আজ মঙ্গলবার ভোর থেকেই ময়মনসিংহ স্টেশন থেকে কোনো লোকাল, মেইল ও কমিউটার ট্রেন ছেড়ে যায়নি। আকস্মিক ট্রেন চলাচল বন্ধ ঘোষণা করায় অনেক যাত্রীই স্টেশনে গিয়ে বাড়ি ফেরত গেছেন, নইলে বিকল্প বাহনে গন্তব্যে রওনা দিয়েছেন। ফলে ময়মনসিংহ স্টেশনের প্ল্যাটফর্ম ছিল প্রায় ফাঁকা।

ময়মনসিংহ রেলওয়ে স্টেশন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে ট্রেন চলাচল সীমিত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এ জন্য প্রাথমিকভাবে সব মেইল, কমিউটার ও লোকাল ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে ময়মনসিংহ জংশনে লোকাল, মেইল ও কমিউটার ট্রেন বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে আন্তনগর ট্রেন যথারীতি চলাচল করছে। তবে আগামীকাল বা পরশু থেকে এগুলোও বন্ধ হতে পারে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ময়মনসিংহ-চট্টগ্রাম রুটে ময়মনসিংহ এক্সপ্রেস, ময়মনসিংহ-বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব রুটে ধলেশ্বরী মেইল, জে এম লোকাল, ৩৭ আপ, ময়মনসিংহ-দেওয়ানগঞ্জ রুটে ভাওয়াল এক্সপ্রেস, দুই জোড়া লোকাল, ময়মনসিংহ-ভৈরব রুটে দুই জোড়া লোকাল, ময়মনসিংহ–মোহনগঞ্জ রুটে দুই জোড়া লোকাল এবং ময়মনসিংহ-জারিয়া রুটে চার জোড়া লোকাল ট্রেন বন্ধ আছে। ঢাকা থেকে ময়মনসিংহ হয়ে নেত্রকোনা ও জামালপুরে চলাচলকারী মহুয়া কমিউটার, বলাকা কমিউটার, দেওয়ানগঞ্জ কমিউটার ও জামালপুর কমিউটার ট্রেনগুলো চলছে না আজ।

কোনো ঘোষণা ছাড়া আকস্মিক ট্রেনগুলো বন্ধ করে দেওয়ায় অনেক ট্রেনযাত্রীই বিড়ম্বনার শিকার হন। সকালবেলা ময়মনসিংহ স্টেশনে এসে ট্রেন চলবে না জানতে পেরে হতাশ হয়ে বিকল্পপথে যাত্রা করেন অনেকেই। মনির হোসেন নামে এক ব্যাংক কর্মকর্তা বলেন, অন্তত একদিন আগে হলেও ট্রেন বন্ধের ঘোষণা দেওয়া উচিত ছিল রেল কর্তৃপক্ষের। তাহলে যাত্রীদের ভোগান্তি হতো না।

ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখার বিষয়ে ময়মনসিংহের স্টেশন সুপার জহুরুল ইসলাম বলেন, রাতে মেইল, লোকাল ও কমিউটার ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখার ব্যাপারে নির্দেশনা এসেছে। তাই ময়মনসিংহ স্টেশন দিয়ে চলাচলকারী এ ধরনের ১৯ জোড়া ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে ময়মনসিংহ হয়ে ৭ জোড়া আন্তনগর ট্রেন চলাচল করছে। এগুলো বন্ধের ব্যাপারে কোনো নির্দেশনা আসেনি। তাই আন্তনগর ট্রেনগুলো যথারীতি চলাচল করছে। তবে এসব ট্রেন যেকোনো সময় বন্ধ করে দেওয়া হতে পারে। যাত্রীদের সাময়িক ভোগান্তি হলেও তাদের নিরাপত্তার কথা ভেবেই এই সিদ্ধান্ত।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0