বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

তালা থানা সূত্রে জানা যায়, তালা সরকারি কলেজ ছাত্রাবাসের একটি কক্ষে গত রোববার সাড়ে তিন ঘণ্টা ওই কলেজছাত্রকে আটক রেখে বিবস্ত্র করে নির্যাতন করা হয়। এ ঘটনায় ওই ছাত্রের বাবা বাদী হয়ে সোমবার একটি মামলা করেন। মামলায় সৈয়দ আকিব, উপজেলা শ্রমিক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সৌমিত্র চক্রবর্তী এবং ছাত্রলীগ কর্মী জে আর সুমন, জয় ও নাহিদ হাসানকে আসামি করা হয়।

নির্যাতনের শিকার ওই কলেজছাত্র বলেন, ছাত্রলীগ কর্মী নাহিদ হাসান তাঁকে ফোন করে ডেকে নিয়ে যান। এরপর তালা সরকারি কলেজের একটি কক্ষে নিয়ে তাঁকে আটকে রাখেন এবং সাড়ে তিন ঘণ্টা ধরে নির্যাতন চালান আসামিরা। মারধর করে মাথার চুল ফেলে দেন। এরপর তাঁরা বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণ করেন এবং বাড়িতে ফোন দিয়ে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন তাঁরা।

ছাত্রের বাবা বলেন, ছেলেকে উদ্ধারের পর তালা হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হয়। এরপর রাতে থানায় এজাহার জমা দিতে গেলে থানার মধ্যেই তাঁকে হুমকি দিতে থাকে ঘটনার সঙ্গে জড়িত লোকজন। এমনকি হাসপাতালে গিয়েও হুমকি-ধমকি দিচ্ছিলেন ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা। নিরাপত্তাহীনতার কারণে সোমবার ছেলেকে বাড়িতে নিয়ে যান তিনি।

তদন্ত কর্মকর্তা ও তালা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) চন্দন কুমার মণ্ডল বলেন, বুধবার রাতে মামলার প্রধান আসামি আকিবকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্যদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন