সূত্র জানায়, কালিয়াকৈর ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রায় আধা ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ততক্ষণে রিফাত ছাড়াও আবদুল আজিজ, হাসান মিয়া, আবদুল হালিম, অঞ্জন ব্যাপারী, শাওয়ান ও রমজান হোসেনের দোকান বিভিন্ন মালামালসহ পুড়ে যায়। কালিয়াকৈর পৌরসভার মেয়র মজিবুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

কালিয়াকৈর ফায়ার সার্ভিসের ওয়্যারহাউস ইন্সপেক্টর সাইফুল ইসলাম জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে। প্রায় আধঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। তবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নিরূপণ করা যায়নি। এ ছাড়া আগুনে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন