কালীগঞ্জে জ্বর, সর্দি, কাশি, হাঁচি নিয়ে নারীর মৃত্যু

বিজ্ঞাপন
default-image

সাতক্ষীরার কালীগঞ্জে জ্বর, সর্দি, কাশি ও হাঁচি নিয়ে এক নারী মারা গেছেন। আজ বুধবার ভোরে কালীগঞ্জ উপজেলার বন্দকাটি গ্রামে বাবার বাড়িতে তাঁর মৃত্যু হয়। উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ বলছে, হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে ওই নারীর মৃত্যু হয়েছে বলে তারা প্রাথমিকভাবে মনে করছে।

ওই নারীর নাম রাশিদা খাতুন (২৫)। তিনি কালীগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ শ্রীপুর গ্রামের ফতেপুর গ্রামের সিরাজুল ইসলামের স্ত্রী ও পাশের বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের বন্দকাটি গ্রামের আবদুস ছালামের মেয়ে।

বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান শেখ রিয়াজউদ্দিন মুঠোফোনে বলেন, গত ২৬ মার্চ সন্ধ্যার দিকে রাশিদা খাতুনের জ্বর শুরু হয়। ২৭ মার্চ তিনি শ্বশুরবাড়ি থেকে বন্দকাটি গ্রামে বাবার বাড়িতে চলে আসেন। ২৮ মার্চ স্থানীয় পল্লি চিকিৎসককে দেখান। কিন্তু সুস্থ না হওয়ায় স্থানীয় একজন হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন। আজ ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে মারা যান রাশিদা। রাশিদার বাবা শিক্ষক আবদুস ছালামের বরাত দিয়ে ইউপির চেয়ারম্যান আরও বলেন, রাশিদা মৃত্যুর আগে তাঁর শরীর জ্বালা করার কথা বলেছিলেন। তিনি বারবার গোসল করতে চাইছিলেন। সঙ্গে তাঁর সর্দি-কাশি-হাঁচি, কোমরে ব্যথা ও গ্যাস্ট্রিকের সমস্যাও ছিল।

default-image

জনপ্রতিনিধি ও পরিবার সূত্রে জানা গেছে, রাশিদা, তাঁর স্বামী, শ্বশুর কিংবা বাবার বাড়ির কেউ দু-এক দিনের মধ্যে বাড়ির বাইরে যাননি। উপসর্গগুলো করোনাভাইরাসের মতো হওয়ায় সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। স্থানীয় গ্রাম পুলিশ সদস্যের মাধ্যমে ওই বাড়ির সদস্যদের আপাতত বিচ্ছিন্ন করে রাখা হয়েছে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা এখন ওই গ্রামে অবস্থান করছেন। পাশাপাশি বিষয়টি কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগকে জানানো হয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা শেখ তবিবুর রহমান মুঠোফোনে বলেন, তিনি বিষয়টি শুনেছেন। প্রাথমিকভাবে মনে হয়েছে, ওই নারী হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। তারপরও বিস্তারিত খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন