default-image

রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলায় প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে কটূক্তি করার মামলায় এক যুবককে গ্রেপ্তারের পর কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ। অভিযুক্ত যুবকের নাম লিটন কাজী (২৭)। তিনি পাংশা উপজেলার চরমৌদিপুর গ্রামের মোন্তাজ কাজীর ছেলে। তিনি কালুখালী উপজেলার বোয়ালিয়া গ্রামে ভাড়া বাসায় থাকছেন। লিটন সেখানকার একটি ইটভাটায় সহকারী ব্যবস্থাপক হিসেবে কর্মরত।

গতকাল সোমবার উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শেখ মো. রিপন (২৮) বাদী হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কালুখালী থানায় মামলাটি করেন। তিনি কালুখালীর তফাদিয়া গ্রামের মতিউর রহমানের ছেলে।

গতকাল সোমবার রাজবাড়ীর কালুখালী ছাত্রলীগের সভাপতি শেখ মো. রিপন (২৮) বাদী হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কালুখালী থানায় মামলাটি করেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, বাদী ২৪ এপ্রিল তাঁর ফেসবুকে প্রবেশ করে প্রধানমন্ত্রীকে কটূক্তি করে দেওয়া লিটন কাজীর স্ট্যাটাস দেখতে পান। লিটনের স্ট্যাটাসের অংশবিশেষ এমন, ‘উইপোকা যেমন পাখা গজালে আগুনে ঝাঁপ দেয়, ঠিক সেই রকম ইসলাম ধর্মের ওপর আঘাত করেছ তুমি, হাসিনা মনে রেখ, তুমি আগুনে হাত দিয়েছ, তোমার হাত পুড়বেই।’ লিটন কাজী প্রধানমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর সুনাম ক্ষুণ্ন করাসহ আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি বিঘ্নিত করার জন্য মিথ্যা ও মানহানিকর তথ্য ফেসবুকে প্রচার করেছেন। এতে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কালুখালী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) হাসানুর রহমান বলেন, গতকাল মামলা করার পর অভিযান চালিয়ে আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। দুপুরেই তাঁকে রাজবাড়ী আদালতে পাঠানো হয়েছে। আদালতের বিচারক তাঁর জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন