বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এদিকে ঘটনার পর পুলিশের বিভিন্ন ইউনিট ও র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) তদন্ত শুরু করে। টাঙ্গাইলে দায়িত্বরত র‌্যাব-১২–এর ৩ নম্বর কোম্পানি কমান্ডার আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, কিশোরীর সঙ্গে কিশোরের দুই বছর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। দুই মাস আগে তাদের মধ্যে দূরত্বের সৃষ্টি হয়। এ কারণে ক্ষিপ্ত কিশোর এমনটা করে। হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ধারালো ছুরিটি উদ্ধার করা হয়েছে। সেটি কিশোর টিকটক ভিডিওতেও ব্যবহার করেছিল। র‌্যাবের কাছে বেশ কয়েকটি ভিডিও ফুটেজ আছে, যা দেখে এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে কিশোরের জড়িত থাকার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে।

নিহত কিশোরীর বাড়ি এলেঙ্গা এলাকায়। সে নবম শ্রেণির ছাত্রী ছিল। কিশোরটি পরিবহনশ্রমিক ছিল।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন