বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নদন্দনালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জিয়াউর রহমান বলেন, দীর্ঘদিন রোগে ভুগছিলেন রব্বানী শেখ। তাঁর দুই ছেলে হাফেজিয়া মাদ্রাসায় পড়াশোনা করছে। কামলা খেটে যা পেতেন, তা দিয়ে রোগের চিকিৎসা, সংসার চালানো ও ছেলেদের পড়াশোনা করানো তাঁর কাছে কঠিন হয়ে পড়েছিল। তাই ক্ষোভে তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশের সুরতহাল করে। পরিবারের অভিযোগ না থাকায় ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশটি পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। অসুস্থতার কারণে ক্ষোভ থেকে আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন