বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিকেলে মামলাটি আমলে নিয়ে জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম চন্দন কান্তি নাথ পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) ১৮ আগস্ট তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দেন।

মামলার বিবাদীরা হলেন অভিনেতা মোশাররফ করিম, জামিল হোসেন, ফারুক আহমেদ, হাইপ্রেশার-২ নাটকের রচয়িতা ও পরিচালক আদিবাসী মিজান এবং বৈশাখী ইউটিউব চ্যানেল।

আরজিতে বাদী রফিকুল ইসলাম উল্লেখ করেন, ‘৯ জুলাই বেলা ১১টায় বৈশাখী ইউটিউব চ্যানেলে আদিবাসী মিজানের রচনা ও পরিচালনায় নাটক হাইপ্রেশার-২ দেখছিলাম। ওই নাটকের ৩৫ থেকে ৫০ মিনিট এবং ১৩০ থেকে ১৫০ মিনিটের মধ্যে আইনজীবীদের বাজেভাবে উপস্থাপন করা হয়। আইনজীবীদের কটাক্ষ করা হয়।’

রফিকুল ইসলাম উল্লেখ করেন, ‘একজন অভিনেতা একটি পেশায় থেকে অন্য পেশার ব্যক্তিদের “দুইডা উকিলের দাম কত? সস্তা আছে” এমন সংলাপ দিতে পারেন না। বিষয়টিতে আইনজীবীদের কটাক্ষ ও হেয় করা হয়েছে। এতে আমার আইন পেশার প্রতি অবজ্ঞা ও অসম্মান করা হয়েছে। তাই ৫০ কোটি টাকার মানহানির মামলা করা হলো।’

জানতে চাইলে মামলার বাদী রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘মোশাররফ করিম একটি পেশার লোক হয়ে আইনজীবীদের হেয় করে সংলাপ দিয়েছেন। নাটকের তিন অভিনেতা, নির্দেশক ও একটি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আমি মামলা করেছি।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন