বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নিহত ব্যক্তির পরিবার সূত্রে জানা যায়, গতকাল রাতে প্রতিদিনের মতো রাজু বাসায় ঘুমিয়ে ছিলেন। হঠাৎ প্রতিপক্ষের লোকজন পুরো বাড়ি ঘেরাও করে হামলা চালান। রাজুকে ঘর থেকে বের করে একাধিক গুলি করেন তাঁরা। সন্ত্রাসীদের গুলিতে রাজু আহত হলে পরিবারের সদস্যরা তাঁকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়ার ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক রাজুকে মৃত ঘোষণা করেন। রাতেই লাশ একই হাসপাতালের মর্গে নেওয়া হয়।

কুষ্টিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাব্বিরুল আলম বলেন, কয়েক মাস ধরে দরবেশপুর এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে স্থানীয় মামুন ও বক্কার গ্রুপের মধ্যে কোন্দল চলে আসছে। ধারণা করা হচ্ছে, তারই ধারাবাহিকতায় এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। রাজু আহম্মেদ মামুন গ্রুপের সমর্থক। ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের ধরতে পুলিশের অভিযান চলছে। নতুন করে সংঘর্ষ এড়াতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। থানায় হত্যা মামলা নেওয়া হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন