default-image

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত রসায়ন বিভাগের সাবেক ইমেরিটাস অধ্যাপক ফখরুল ইসলাম (৮২) মারা গেছেন। জ্বর ও শ্বাসকষ্টের কারণে আজ বৃহস্পতিবার সকালে তাঁকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। এরপর বেলা দেড়টার দিকে তিনি মারা যান (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

হাসপাতালের উপপরিচালক সাইফুল ফেরদৌস জানান, জ্বর ও শ্বাসকষ্ট থাকায় ইমেরিটাস অধ্যাপক ফখরুল ইসলামকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন কি না, তা জানার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। নমুনা পরীক্ষার পরই বলা যাবে। আপাতত স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাঁকে দাফনের জন্য কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

ফখরুল ইসলামের বাড়ি নগরের কাজিহাটা এলাকায়। তাঁর জন্ম ১৯৩৮ সালে, কলকাতায়। তাঁর বাবা মীর আহমদ হোসেন রাজশাহী কলেজের উপাধ্যক্ষ ছিলেন। পড়াশোনা শেষ করে ফখরুল ইসলামও শিক্ষকতা শুরু করেছিলেন। আর্সেনিক নিয়ে গবেষণায় এই বিজ্ঞানীর বিশেষ অবদান রয়েছে।

ফখরুল ইসলাম ২০০৩ সালের দিকে ইমেরিটাস অধ্যাপক হয়েছিলেন। পরে অবশ্য অসুস্থতার কারণে তিনি এ পদ থেকে পদত্যাগ করেছিলেন। তাঁর দুই ছেলের একজন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক। আরেকজন একটি বেসরকারি ব্যাংকের কর্মকর্তা।

বড় ছেলে মমতাজুল ইসলাম জানান, গত সোমবার থেকে তাঁর বাবা জ্বরে ভুগছিলেন, সঙ্গে কাশিও ছিল। ওষুধ খাওয়ানোর পরে কাশি কমে গেলেও জ্বর কমছিল না। আজ সকালে তাঁর বাবা হাঁপিয়ে উঠছিলেন। পরে তাঁর ছোট ভাই এসে পালস অক্সিমিটার দিয়ে মেপে দেখেন, তাঁর বাবার শরীরে অক্সিজেনের স্যাচুরেশন কমে গেছে। এরপরই তাঁকে দ্রুত হাসপাতালে নেওয়া হয়। হাসপাতালে নেওয়ার পরও সেখানকার আনুষ্ঠানিকতা পালনের জন্য বাবাকে দুই ঘণ্টা বসে থাকতে হয়। তারপর শয্যায় দেওয়ার পর অক্সিজেন দিতে দিতেই বাবা মারা যান।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0