default-image

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন নিহতের ঘটনায় সন্দেহভাজন এক যুবলীগ নেতা আটক হয়েছেন। আজ রোববার দুপুরে কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট এলাকা থেকে তাঁকে আটক করে মামলার তদন্তকারী সংস্থা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

আটক হওয়া যুবকের নাম বেলাল উদ্দিন (২৬)। তিনি কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চরফকিরা ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের ইব্রাহিমের ছেলে। বেলাল চরফকিরা ইউনিয়ন যুবলীগের সদস্য। আটকের পর বেলালকে জেলা শহরের পিবিআই কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়েছে। সেখানে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে পিবিআই সূত্রে জানা গেছে।

সাংবাদিক বুরহান হত্যা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পিবিআই নোয়াখালীর পরিদর্শক মোস্তাফিজুর রহমান আটকের এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। রোববার বিকেল সোয়া পাঁচটায় প্রথম আলোকে তিনি বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দুপুরে বসুরহাট এলাকা থেকে তাঁকে আটক করা হয়েছে। আটকের পর পিবিআই কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এ মামলায় এই প্রথম কাউকে আটক করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

কোন তথ্যের ভিত্তিতে বেলালকে আটক করা হয়েছে, এমন প্রশ্নের জবাবে তদন্তকারী কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকে প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে মামলাটি তদন্ত করছেন তাঁরা। তদন্তে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতেই তাঁকে আটক করা হয়েছে। তদন্তের স্বার্থে এ বিষয়ে বিস্তারিত বলা সম্ভব নয় বলেও জানান তদন্তকারী কর্মকর্তা।

বিজ্ঞাপন

এদিকে স্থানীয়ভাবে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, পিবিআইয়ের হাতে আটক বেলাল হোসেন স্থানীয় যুবলীগের সক্রিয় সদস্য। তাঁকে আটকের পর ইতিপূর্বে বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমানের পাশে দাঁড়িয়ে তোলা একাধিক ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরসহ আওয়ামী লীগের নেতাদের বিরুদ্ধে কাদের মির্জার অব্যাহত ‘মিথ্যাচারের’ প্রতিবাদে গত ১৯ ফেব্রুয়ারি বিকেলে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চাপরাশিরহাট বাজারে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও মিজানুর রহমান বাদল। মিছিলটি বিকেল পাঁচটায় বাজারসংলগ্ন তাঁর বাড়ি থেকে বের হয়ে চাপরাশিরহাট মধ্যম বাজারে গেলে কাদের মির্জার অনুসারীরা মিছিলে হামলা চালান। এ নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষ ও গোলাগুলি চলাকালে দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকার নোয়াখালী প্রতিনিধি বুরহান উদ্দিন গুলিবিদ্ধ হন। গত ২০ ফেব্রুয়ারি রাত পৌনে ১১টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান বুরহান।

এ ঘটনায় নিহত সাংবাদিক বুরহানের বাবা নুরুল হুদা বাদী গত ২৩ ফেব্রুয়ারি অজ্ঞাতনামা আসামিদের নামে থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন। মামলার পরদিনই পুলিশ সদর দপ্তরের নির্দেশে মামলাটির তদন্তের দায়িত্ব পায় পিবিআই।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন