বিজ্ঞাপন

যশোর সিভিল সার্জনের কার্যালয় এবং যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ওই নারীর মেয়ে ক্যানসারে আক্রান্ত হলে চিকিৎসার জন্য ভারতে নিয়ে যান। ৮ মে তাঁরা যশোরের বেনাপোল ইমিগ্রেশন দিয়ে দেশে ফেরেন। ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনের জন্য তাঁদের শহরের ম্যাগপাই হোটেলে রাখা হয়।

গতকাল বৃহস্পতিবার কোয়ারেন্টিনের ১৪ দিন পূর্ণ হলে নির্দেশনা অনুযায়ী করোনা পরীক্ষার জন্য তাঁদের নমুনা সংগ্রহ করে ল্যাবে পাঠানো হয়। পরীক্ষার ফলাফলে ওই নারীর করোনা শনাক্ত হলেও তাঁর অসুস্থ মেয়ের প্রতিবেদন নেগেটিভ আসে। ফলে ওই নারীকে যশোর জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভর্তি করা হয়।

যশোর সিভিল সার্জন কার্যালয়ের চিকিৎসা কর্মকর্তা রেহনেওয়াজ বলেন, কোয়ারেন্টিনের শেষ দিনে ওই নারীর শরীরে করোনা শনাক্ত হলে তাঁকে হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভর্তি করা হয়। তবে তাঁর শরীরে গুরুতর কোনো উপসর্গ নেই।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন