বিজ্ঞাপন

এ ঘটনার এক দিন পরে বুধবার শিবচর থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ কোনো পরামর্শ না দিয়ে সুজনকে চলে যেতে বলেন। এরপর সুজন শেখ বৃহস্পতিবার মাদারীপুরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সাইদুর রহমানের আদালতে মামলা করেন। শুনানি শেষে বিচারক মামলাটি গ্রহণ করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দেন। ২৫ মার্চ মামলার শুনানির তারিখ ধার্য করেন।

শনিবার বেলা আড়াইটায় জেলার পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ মাহবুব হাসান প্রথম আলোকে বলেন, ‘ভুক্তভোগী ওই যুবক (সুজন শেখ) যদি আমাদের কাছে সরাসরি বিষয়টি নিয়ে লিখিত অভিযোগ দিতেন, তাহলে আমরা তাঁদের বিরুদ্ধে তাৎক্ষণিক বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতাম। যেহেতু তিনি আদালতে মামলা করেছেন। আমরা আদালতের নির্দেশ মোতাবেক বিষয়টি নিয়ে কাজ করব।’ তিনি আরও বলেন, আদালত ওই দুই পুলিশ সদস্যের চাঁদাবাজির বিষয়টি পিবিআইকে তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে ওই দুই পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন