default-image

১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের সময় খুলনার গল্লামারী পুরোনো সেতুর পশ্চিম পাশে সংঘটিত মানবতাবিরাধী অপরাধের অভিযোগে ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।
আজ বৃহস্পতিবার খুলনার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের আমলি আদালতে (১) সুখজান বিবি নামের এক ব্যক্তি মামলাটি করেন। তিনি খুলনার দাকোপের গড়খালী গ্রামের সেই সময়কার আওয়ামী লীগ কর্মী ও মুক্তিযুদ্ধের সমর্থক মহাতাপ বিশ্বাসের স্ত্রী।
আসামিরা হলেন দাকোপের মো. সোহরাব হোসেন মোল্লা (৭০), মো. মতিয়ার রহমান সানা ওরফে মনিসানা (৭২), মো. এলাই গাজী (৭২), মো. জহুর শেখ (৭০), নগরের নূরনগর খালিশপুর এলাকার মো. সিরাজুল ইসলাম (৭১) ও খুলনা সদরের স্যার ইকবাল রোডের মো. আবদুল খালেক (৬৮)।

বিজ্ঞাপন

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের সময় আসামিরা শান্তি কমিটির সদস্য ছিলেন। ১৯৭১ সালের আগস্ট মাসের মাঝামাঝি সময় মামলার আসামিরা বাদীর স্বামী মহাতাপ বিশ্বাসসহ ৯ জন মুক্তিযুদ্ধের সহযোগীকে গল্লামারী পুরোনো সেতুর পশ্চিম পাশে সারবদ্ধভাবে দাঁড় করিয়ে গুলি করে হত্যা করেন। এ ছাড়া আসামিরা মুক্তিযুদ্ধের সময় অসংখ্য মানুষকে হত্যা, ধর্ষণ ও নিরীহ মানুষের ধনসম্পদ লুট করে ঘৃণ্য অপরাধ করেছেন। মামলায় সাতজনকে সাক্ষী রাখা হয়েছে।
বাদীপক্ষের আইনজীবী হেমন্ত কুমার সরকার প্রথম আলোকে বলেন, বিচারক মো. আমিরুল ইসলাম মামলাটি গ্রহণ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য তা আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

মন্তব্য পড়ুন 0