default-image

যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে মারপিটের অভিযোগে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের (কেএমপি) গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) পরিদর্শক নাহিদ হাসান মৃধার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার রাতে নাহিদের স্ত্রী আঁখিমুনা বাদী হয়ে খালিশপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলাটি করেছেন।

মামলার এজাহারে আঁখিমুনা উল্লেখ করেছেন, ২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারিতে পারিবারিকভাবে সাড়ে ৩ লাখ টাকা দেনমোহরে বিয়ে হয় তাঁদের। বিভিন্ন সময় তাঁর বাবার বাড়ি থেকে ৭ লাখ টাকা দেওয়া হয় নাহিদ হাসানকে। তারপরও যৌতুকের দাবিতে তাঁকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করে আসছিলেন নাহিদ। সম্প্রতি জমি কেনার জন্য ১৪ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন নাহিদ। ১ মার্চ রাতে যৌতুকের জন্য মারপিট করার একপর্যায়ে চাকু নিয়ে তাঁকে খুন করতে যান তিনি। এ সময় তিনি অচেতন হয়ে পড়েন। পরে তাঁর মা তাঁকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান–স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করেন। এ ঘটনায় স্বামীর অত্যাচার থেকে রক্ষা ও জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে পুলিশ কমিশনারের কাছে আবেদন করেন আঁখিমুনা। এই দম্পতির ঘরে নিহাদ নামে ৫ বছরের এক ছেলে আছে।

এর আগে ৭ মার্চ খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসির উপপরিদর্শক (এসআই) সফুরা খাতুন খালিশপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) চিঠি দিয়ে ঘটনার তদন্ত করে মামলা নেওয়ার কথা বলেন।

খালিশপুর থানার ওসি মোস্তাক আহমেদ বলেন, ডিবির পরিদর্শক নাহিদ হাসান মৃধার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। গতকাল রাতে রাতে তাঁর স্ত্রী বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলাটি করেন।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন