সোনাডাঙ্গা থানা–পুলিশ সূত্র বলছে, প্রমিজ নাগ খুলনায় নর্দান ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস অ্যান্ড টেকনোলজির সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগ বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন। তিনি হোটেল সিটি ইনের পেছনে সালাম হাওলাদারের বাড়ির চতুর্থ তলার ভাড়াটে হিসেবে বসবাস করতেন।

পুলিশ ও সহপাঠীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে পাশের ফ্লাটে অবস্থানরত সহপাঠীরা ফ্যানের সঙ্গে প্রমিজ নাগকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। পরে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়।

সোনাডাঙ্গা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. নাহিদ হাসান মৃধা প্রথম আলোকে বলেন, বৃহস্পতিবার ওই শিক্ষার্থীর মরদেহের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। প্রেমঘটিত কারণে ওই শিক্ষার্থী আত্মহত্যা করেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। শিক্ষার্থীর বাবা বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় থানায় আত্মহত্যার প্ররোচনার একটি মামলা করেছেন। তবে তাৎক্ষণিক তিনি মামলায় অভিযুক্ত ব্যক্তির নাম জানাননি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন