default-image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটি গঠনের ১৩ দিনের মধ্যে তা বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে। ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদের সহদপ্তর সম্পাদক আজিজুল হক সোহেলের স্বাক্ষরিত একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে প্রকাশ করা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের সাংগঠনিক পত্রে লিখিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদের সিদ্ধান্ত মোতাবেক ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলা শাখার বিদ্যমান আহ্বায়ক কমিটির কোনো কার্যকারিতা না থাকায় কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হলো।’

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদ উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য বেবি ইসলামের ছেলে এম রিফাত বিন জিয়াকে আহ্বায়ক ও রসুলপুর গ্রামের আমান উল্লাহকে সদস্যসচিব করে ২১ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করেছিল। কমিটিতে একজন আহ্বায়ক, ১৩ জন যুগ্ম আহ্বায়ক, একজন সদস্যসচিব ও ছয়জনকে সদস্য করা হয়েছিল।

বিজ্ঞাপন

২৬ ফেব্রুয়ারি ওই কমিটির ১৪ জনই লিখিতপত্রের মাধ্যমে পদত্যাগ করেন। পরের দিন আরও একজন পদত্যাগ করেন। ২৫ ফেব্রুয়ারি আহ্বায়ক কমিটির ২ নম্বর যুগ্ম আহ্বায়ক মোস্তাকিমুর রহমানসহ আটজন এবং আহ্বায়ক পদপ্রার্থী মোস্তাক আলম খন্দকারের নেতৃত্বে শতাধিক নেতা-কর্মী কমিটি বাতিলের দাবিতে উপজেলা সদরে বিক্ষোভ মিছিল করেন। তাঁরা কমিটির আহ্বায়ক ও সদস্যসচিবকে উপজেলা সদরে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেন। এ ছাড়া দুজনকেই উপজেলার কোথাও সভা-সমাবেশ করতে না দেওয়ার ঘোষণা দেন।

পদত্যাগীরা আহ্বায়ক এম রিফাতের বিরুদ্ধে একাধিক বিয়ে করা এবং একাধিক মামলা ও গ্রেপ্তারি পরোয়ানা থাকার অভিযোগ তোলেন। এ ছাড়া আহ্বায়ক ও সদস্যসচিব দুজনের বিরুদ্ধে এলাকায় না থাকা ও অছাত্র বলে অভিযোগ তোলেন তাঁরা।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক রুবেল চৌধুরী সরাইল উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটি বিলুপ্তির ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, সেখানে প্রকৃত ছাত্রদের নিয়ে নতুন করে সক্রিয় কর্মীদের মাধ্যমে ৩০ মার্চের মধ্যে নতুন করে কমিটি ঘোষণা করা হবে। ছাত্রদলের কমিটিতে বিবাহিত ও অছাত্রদের থাকার কোনো সুযোগ নেই।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন