বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আশিকুজ্জামান পঞ্চগড় পৌরসভার কায়েতপাড়া এলাকার বাসিন্দা। তিনি বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, পঞ্চগড় জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ‘মানবিক বাংলাদেশ সোসাইটি’ নামে একটি সংগঠনের পঞ্চগড় জেলা শাখার সভাপতি।

আদালত সূত্রে জানা যায়, মামলাটি আমলে নিয়ে পঞ্চগড়ের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. হ‌ুমায়ূন কবির সরকার সিআইডিকে তদন্ত করে আগামী ৫ জানুয়ারির মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলা দায়েরকারী আশিকুজ্জামান বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, পঞ্চগড় জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ‘মানবিক বাংলাদেশ সোসাইটি’ নামে একটি সংগঠনের পঞ্চগড় জেলা শাখার সভাপতি।

বাদীপক্ষের আইনজীবী আরাফাত হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে তুচ্ছতাচ্ছিল্য করে বক্তব্য দিয়েছেন বিবাদী। তিনি বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়ে ইতিহাস বিকৃত করেছেন। বিবাদী মহান মুক্তিযুদ্ধের শহীদের সংখ্যা নিয়েও বিভ্রান্তি ছড়িয়েছেন। এতে সমাজে বিশৃঙ্খলার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে বাদী নৈতিকতার স্থান থেকে এ মামলাটি করেছেন। বাদী দণ্ডবিধির ৫০৪, ৫০৫ ও ৫০৫ (এ) ধারায় গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। আদালতের বিচারক সন্তুষ্ট হয়ে মামলাটি আমলে নিয়েছেন। এ বিষয়ে আদালত সিআইডিকে তদন্ত করে আগামী ৫ জানুয়ারির মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

গত সেপ্টেম্বরে গোপনে ধারণ করা মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের কথোপকথনের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। এতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও জেলার কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা সম্পর্কে বিতর্কিত মন্তব্য করা হয়েছে বলে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা অভিযোগ করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে গত শুক্রবার আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় জাহাঙ্গীর আলমকে গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে অব্যাহতি এবং দলের প্রাথমিক সদস্যপদ থেকে বহিষ্কার করা হয়। সর্বশেষ আজ স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে জাহাঙ্গীর আলমকে মেয়রের পদ থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন