শিশুটির মামা কবির হোসেন বলেন, দুই দিন আগে মায়ের সঙ্গে শশাতলী গ্রামে নানাবাড়িতে বেড়াতে যায় ইসা। আজ সকালে ওই ঘরের পেছনের বারান্দায় একটি বাক্সে থাকা বাসুডিন খায় সে। পরে ঘরের মেঝেতে বাসুডিন ছড়িয়ে–ছিটিয়ে থাকতে দেখে তার মায়ের সন্দেহ হয়। এ সময় জানতে চাইলে শিশুটি জানায়, প্যাকেটে থাকা কীটনাশক সে গুঁড়া দুধ ভেবে খেয়ে ফেলেছে। স্বজনেরা ইসাকে দ্রুত বরগুনা সদর হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসক শিশুটির পেট ওয়াশ করেন। এর কিছুক্ষণ পর হাসপাতালে শিশুটি মারা যায়।

বরগুনা সদর হাসপাতালের চিকিৎসক সুমন বিশ্বাস বলেন, কীটনাশক খাওয়ার পর শিশুটিকে হাসপাতালে আনা হয়। এর কিছুক্ষণ পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

বরগুনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলী আহম্মদ প্রথম আলোকে বলেন, শিশুটি মারা যাওয়ার ঘটনায় থানায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে লাশটি পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন