বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

২০২০ সালের ৩১ জুলাই রাতে টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের শামলাপুর তল্লাশিচৌকিতে পুলিশের গুলিতে নিহত হন মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খান।
আজ রোববার সকাল সোয়া ১০টা থেকে শুরু হয় সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলার দ্বিতীয় দফার সাক্ষ্য গ্রহণ। মধ্যখানে এক ঘণ্টার বিরতি নিয়ে সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টা পর্যন্ত চলে আদালতের কার্যক্রম।

আদালতের সরকারি কৌঁসুলি ফরিদুল আলম প্রথম আলোকে বলেন, আজ একজন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ ও তাঁকে আসামিপক্ষের আইনজীবীদের জেরা শেষ হয়েছে। ৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে দ্বিতীয় দফার সাক্ষ্য গ্রহণ। এই চার দিনে ১৩ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ হতে পারে। মামলার মোট সাক্ষী ৮৩ জন।

আদালতসংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, মোহাম্মদ আলীর জবানবন্দি শেষ হলে বেলা একটার দিকে তাঁকে জেরা শুরু করেন আসামিপক্ষের আইনজীবীরা। বেলা দুইটার দিকে এক ঘণ্টার বিরতি দেন আদালতের বিচারক। বেলা তিনটায় আবার শুরু হয় আদালতের কার্যক্রম।

সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টা পর্যন্ত সাক্ষী মোহাম্মদ আলীকে জেরা করেন আসামিপক্ষের ১৩ জন আইনজীবী। আদালতে আসামি ওসি প্রদীপ কুমার দাশের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী রানা দাশগুপ্ত, পরিদর্শক লিয়াকত আলীর পক্ষে ছিলেন চন্দন দাশ ও এএসআই লিটন মিয়ার পক্ষে ছিলেন সৈকত কান্তি দে।

default-image

সাক্ষ্য গ্রহণ ও জেরার সময় আদালতের কাঠগড়ায় ছিলেন ওসি প্রদীপ, লিয়াকত আলীসহ ১৫ জন আসামি। এর আগে প্রথম দফায় (২৩-২৫ আগস্ট) আদালতে সাক্ষ্য দেন মামলার বাদী ও সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস এবং দুই নম্বর সাক্ষী সাহেদুল ইসলাম সিফাত।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন