প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় কয়েকজন বাসিন্দার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আজ সকালে স্বজন ও বন্ধুবান্ধবের সঙ্গে নিয়ে আখতারুজ্জামান রংপুর চিনিকল জামে মসজিদে পবিত্র ঈদুল ফিতরের নামাজ পড়তে যান। সকাল সাড়ে আটটায় ঈদের জামাত শুরু হয়। নামাজের প্রথম রাকাত সম্পন্ন হওয়ার পর দ্বিতীয় রাকাতে তিনি সেজদায় গিয়ে আর উঠছিলেন না। পরে মুসল্লি ও স্বজনেরা তাঁকে নিয়ে দ্রুত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

মহিমাগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আনোয়ারুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, আখতারুজ্জামান ঈদের নামাজের শেষ রাকাতে দ্বিতীয়বারের সেজদায় গিয়ে আর না ওঠায় মুসল্লি ও স্বজনেরা তাঁকে দ্রুত গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানকার চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। তিনি হৃদ্‌রোগে ভুগছিলেন। আখতারুজ্জামানের আকস্মিক মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন