গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা শাহ মো. শরীফ জানান, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তাঁকে হাসপাতালে মৃত অবস্থায় আনা হয়। তাঁর মাথার পেছনের দিকে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, মাথায় আঘাত পাওয়ার কারণে তাঁর মৃত্যু হয়েছে।

সড়ক দুর্ঘটনায় খবর পেয়ে বেলা ১১টার দিকে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ছুটে আসেন মুজিবুর রহমানের স্ত্রী জোসনা খাতুন। হাসপাতালে এসে তিনি দেখেন তাঁর স্বামী আর বেঁচে নেই। এ সময় কাঁদতে কাঁদতে বলেন, তাঁদের দুই ছেলেমেয়ে। ছেলের বয়স ৪ মাস আর মেয়ের বয়স ১৮ মাস। সকালে বাসা থেকে বের হওয়ার আগে তাঁর স্বামী তাঁকে সন্তানদের দেখে রাখতে বলেন। সন্তানদের যেন রাস্তায় বের না হতে দেন, দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। অথচ তাঁর স্বামী নিজে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেলেন।

গোয়ালন্দ মোড় আহ্লাদিপুর হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. দেলোয়ার হোসেন জানান, এ ঘটনায় ট্রাকটি জব্দ করা হয়েছে। তবে চালক ও সহকারী পলাতক। গাড়ির মালিক পক্ষ ও নিহত ব্যক্তির পরিবারের লোকজন থানায় গেছেন। এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন