বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মোহাম্মদ আবদুল্লাহ বলেন, তাঁর স্ত্রী ছয় দিন আগে চার সন্তানসহ বোনের বাড়ি একই উপজেলার মানিকপুর গ্রামে বেড়াতে যান। আনোয়ারার ভাই মো. আরিফ তাঁর ভগ্নিপতি মনির আহমদের বাবার কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা পাওনা ছিল। ওই টাকা চাওয়া নিয়ে আরিফের স্ত্রীর সঙ্গে আনোয়ারার কথা–কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে মনিরের দুই ভাই জমির ও মিজানুর রহমান গৃহবধূ আনোয়ারাকে দা দিয়ে কোপাতে থাকেন। এতে মাটিতে ঢলে পড়েন গৃহবধূ। গুরুতর আহত আনোয়ারাকে উদ্ধার করে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

বেলা তিনটার দিকে উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করেন চকরিয়া থানার উপরিদর্শক (এসআই) গোলাম সরোয়ার। তিনি বলেন, নিহত আনোয়ারার ঘাড়ে ধারালো দায়ের কোপের চিহ্ন পাওয়া গেছে।

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ ওসমান গণি বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য আনোয়ারা বেগমের লাশ কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের ধরতে এলাকায় অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ। তবে সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত নিহত নারীর পরিবারের কাছ থেকে এজাহার পাওয়া যায়নি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন