বিষয়টি নিশ্চিত করে খুলশী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সন্তোষ কুমার চাকমা প্রথম আলোকে বলেন, ঘটনার পর থেকে পলাতক ছিলেন গেটম্যান আশরাফুল। গোপন তথ্যের ভিত্তিতে তাঁকে আটক করা হয়।

রেলওয়ে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হাছান চৌধুরী বলেন, মামলাটি রেলওয়ে থানা-পুলিশ তদন্ত করছে। খুলশী থানা-পুলিশ গেটম্যানকে আটক করেছে। তারা রেলওয়ে পুলিশের কাছে আসামিকে হস্তান্তর করবে।

গত শনিবার বেলা ১১টার দিকে চট্টগ্রাম নগরের জাকির হোসেন সড়কের ঝাউতলা রেলগেটের এক পাশে লোহার বার ফেলা ছিল। এক পাশের গেট খোলা থাকায় ওই পাশে সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও টেম্পো দাঁড়িয়ে ছিল। ট্রেনটি রেলগেট অতিক্রম করার সময় জিইসি মোড় থেকে আসা দ্রুতগামী একটি বাস দাঁড়িয়ে থাকা একটি অটোরিকশা ও একটি টেম্পোকে ধাক্কা দিয়ে ট্রেনের ওপর আছড়ে ফেলে। সিসিটিভির ফুটেজে এমন দৃশ্য দেখা গেছে। নাজিরহাট থেকে ডেমু ট্রেনটি চট্টগ্রাম স্টেশনের দিকে যাচ্ছিল।

ওই দুর্ঘটনায় তিনজন প্রাণ হারিয়েছেন তিনজন। সেখানে গাড়িগুলোকে থামানোর চেষ্টা করার সময় দুর্ঘটনার কবলে পড়ে নিহত হন ট্রাফিক পুলিশের সদস্য মনির হোসেন (৪৯)। প্রাণ যায় এইচএসসি পরীক্ষার্থী সাদরাজ উদ্দিন ও প্রকৌশলী সৈয়দ বাহাউদ্দিনের। দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ছয়জন। তাঁরা চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আছেন।

এ দিকে ওই দুর্ঘটনায় তিনজন নিহতের ঘটনায় বাসচালককে আসামি করে রেলওয়ে থানায় মামলা করে পুলিশ। তবে বাসচালক ও মালিক পলাতক রয়েছেন।