ঝিনাইদহ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল বাসার জানান, সংবাদপত্রের খবর দেখে আজ তাঁরা ঘটনাস্থলে কর্মকর্তা পাঠান। সেখানে গিয়ে সার্বিক পরিস্থিতি দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

কালীগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) জাকারিয়া হোসেন জানান, কর্মকর্তাদের নির্দেশে তিনি আজ দুপুরে সিংদহ গ্রামে যান। সেখানে গিয়ে একজনের চলাচল বন্ধ করতে রাস্তায় বেড়া দিয়ে আটকে দিতে দেখেন। তিনি গ্রামবাসীর উপস্থিতিতে বেড়াটি অপসারণের ব্যবস্থা করেন। নতুন করে কেউ যেন কারও পথ না আটকায়, সে বিষয়ে সবাইকে সতর্ক করে দিয়েছেন বলেও জানান তিনি।

কালীগঞ্জ উপজেলার সুন্দরপুর-দুর্গাপুর ইউনিয়নে গত ২৮ নভেম্বর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এই ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডে সদস্য প্রার্থী ছিলেন ছয়জন। তাঁদের মধ্যে মণ্ডল পরিবার থেকে ভোট করেন ইউনুচ আলী মণ্ডল, আর বিশ্বাস পরিবারের পক্ষ থেকে ভোট করেন লিটন বিশ্বাস। বিশ্বাস পরিবারের এক সদস্য কফিল উদ্দিন বিশ্বাস ভোট করেন মণ্ডল পরিবারের ইউনুচ আলীর। আর মণ্ডল পরিবারের সদস্য বাবুর আলী মণ্ডল ভোট করেন লিটন বিশ্বাসের। ভোটে উভয়কে পরাজিক করে নির্বাচিত হন শেখ পরিবারের কওছার আলী।

এ নিয়ে বিশ্বাস পরিবারের প্রার্থীর সমর্থকেরা কফিল উদ্দিনের বাড়িতে যাওয়ার রাস্তা আটকে দেন। আর মণ্ডল পরিবারের লোকজন বাবুর আলী মণ্ডলের ফসলের গাড়ি বাড়িতে প্রবেশের সময় বাধা দেন।