প্রতিবেশী আরাফাত মিলেনিয়াম প্রথম আলোকে বলেন, মামুন বাবা, বড় বোন, খালাতো বোন ও খালুর সঙ্গে বিকেল চারটার দিকে গোসল করতে যায়। বাবা ও খালু নদীতে সাঁতার দিয়ে দূরে চলে যান। এ সময় ডুবে যায় শিশুটি। তাকে ডুবতে দেখে বড় বোন বাবাকে ডাকতে থাকে। কিন্তু শুনতে পায় না। সে পাড়ে উঠে চিৎকার দিয়ে লোকজন ডাকে। ততক্ষণে তলিয়ে যায় শিশুটি। পরে বাবা ও গ্রামের লোকজন মামুনকে খুঁজে পায় সন্ধ্যার ঠিক আগে।

গোবরাতলা ইউপির ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য উসমান গনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন