বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সমাবেশে স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থী আবদুর রউফ, রায়হান বাদশা, তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আলী আরমান ও আশিকুর রহমান বক্তব্য দেন।

বক্তারা বলেন, দেশের সবকিছু স্বাভাবিকভাবেই চলছে। কিন্তু হল-ক্যাম্পাস কেন খুলে দিচ্ছে না? তাঁদের অভিযোগ, সরকার উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে প্রহসন করছে। সেপ্টেম্বরের মধ্যে হল-ক্যাম্পাস খুলে দেওয়ার জোর দাবি জানান তাঁরা। আগামী চার দিনের মধ্যে ক্যাম্পাস খুলে না দেওয়া হলে হলের তালা ভেঙে প্রবেশ করার কঠোর হুঁশিয়ারি দেন তাঁরা।

সমাবেশে বলা হয়, যেহেতু সরকারের পক্ষ থেকে ঘোষণা এসেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা চাইলে ক্যাম্পাস খুলতে পারবেন। তাহলে তাঁরা কেন সিদ্ধান্ত নিতে পারছেন না। ক্যাম্পাস না খোলা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দেন তাঁরা।

জানতে চাইলে উপাচার্য আবদুস সালাম রোববার রাতে প্রথম আলোকে বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবন নিয়ে আমিও ভাবি। তবে করোনায় জীবন-মরণের বিষয় আছে। সেটা ভাবতে হবে। তারপরও কিছু প্রক্রিয়া শেষ করতে একটু সময় লাগছে। আগামী ৪ অক্টোবর একাডেমিক কাউন্সিলের সভা আছে। এরপর দ্রুত সময়ে ক্যাম্পাস খোলার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন