বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ জানায়, মামলার পর ক্ষেতলাল উপজেলার তিলাবদুল পূর্বপাড়া গ্রামের রশিদুল (৩২) ও রুবেল হোসেনকে (৩৫) গ্রেপ্তার করা হয়। রশিদুল পেশায় ট্রাকচালক, আর রুবেল তাঁর সহকারী। ২৪ অক্টোবর তাঁরা বিকেল পাঁচটায় জয়পুরহাট শহরের পৃথিবী কমপ্লেক্সের সামনে অটোরিকশা স্ট্যান্ডে আসেন। এর আগে তাঁরা শহরের পাঁচুর মোড়ের একটি দোকান থেকে ৩০ টাকায় একটি চাকু কেনেন। অটোরিকশা স্ট্যান্ড থেকে তাঁরা ২০ টাকায় শফিকুল ইসলামের অটোরিকশা রিজার্ভ নিয়ে মঙ্গলবাড়িতে আসেন। মঙ্গলবাড়ি থেকে তাঁরা আদমদীঘি এলাকায় গিয়ে কিছুক্ষণ ঘোরাফেরা করেন। এরপর সেখান থেকে তাঁরা জয়পুরহাটের উদ্দেশে রওনা হন।

রাত নয়টায় জয়পুরহাট-মঙ্গলবাড়ি সড়কের পাইকড়তলী এলাকায় এসে যাত্রীর আসনে থাকা রশিদুল পেছন থেকে চিকন রশি দিয়ে অটোরিকশাচালক শফিকুলের গলায় ফাঁস লাগান। তাঁর সহযোগী রুবেল চালককে জাপটে ধরে থাকেন। রশিদুল চাকু দিয়ে চালকের গলা কেটে হত্যা করেন। পরে দুজনে লাশ ধানখেতে ফেলে অটোরিকশা ছিনিয়ে নিয়ে যান।

পুলিশ সুপার জানিয়েছেন, অটোরিকশাটি নিয়ে তাঁরা ক্ষেতলালের বটতলী বাজারে গিয়ে পাঁচটি ব্যাটারি খুলে জহুরুলের অটোরিকশার ব্যাটারির দোকানে ২৩ হাজার টাকায় সেগুলো বিক্রি করে টাকা ভাগাভাগি করে নেন। পরে তাঁরা অটোরিকশাটি বটতলী বাজারের মতিয়ারের গ্যারেজে রেখে চলে যান। ছিনতাই হওয়া অটোরিকশা, বিক্রি করা পাঁচটি ব্যাটারি, চিকন রশি ও গলা কাটার কাজে ব্যবহৃত চাকু উদ্ধার করা হয়েছে। ট্রাক চালানোর পাশাপাশি তাঁরা অটোরিকশা ছিনতাই করেন। রশিদুল ও রুবেলের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনেও মামলা আছে। তাঁদের আদালতে হাজির করে রিমান্ডের আবেদন করা হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন