বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নিহত ব্যক্তির স্বজন ও প্রত্যক্ষদর্শীদের উদ্ধৃতি দিয়ে আলমডাঙ্গা থানা–পুলিশ জানায়, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার সরোজগঞ্জ বাজার থেকে ভুট্টা বোঝাই করে ট্রাকটি কুষ্টিয়া যাচ্ছিল। ট্রাকটি চুয়াডাঙ্গা-কুষ্টিয়া মহাসড়কে আলমডাঙ্গা উপজেলার কালিদাসপুর ইউনিয়নের ডম্বলপুর ক্লিনিকের কাছে পৌঁছালে পেছন থেকে একটি ড্রাম ট্রাক (বালু বহনের জন্য বিশেষভাবে তৈরি) ভুট্টা বোঝাই ট্রাকটিকে ধাক্কা দেয়। এ সময় ট্রাকচালক নিয়ন্ত্রণ হারালে ট্রাকটি রাস্তার পাশে গঙ্গা-কপোতাক্ষ (জি কে) খালে উল্টে যায়। ঘটনাস্থলেই চালক ও তাঁর সহকারীর মৃত্যু হয়।

দুর্ঘটনার খবর পেয়ে আলমডাঙ্গা থেকে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের একটি ইউনিট এবং আলমডাঙ্গা থানা–পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছায় এবং উদ্ধারকাজে নামে। চালক ও সহকারীর লাশ উদ্ধারের পর সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে পুলিশ।

আলমডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, পরিবারের লিখিত আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। যে ট্রাকটির কারণে দুর্ঘটনা, সেটিকে শনাক্তের চেষ্টা চলছে।

এর আগে ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে জীবননগর উপজেলার সীমান্ত ইউনিয়ন গঙ্গাদাসপুরে মাটিবাহী ট্রাক্টর উল্টে ১৫ ফুট গভীর খাদে পড়লে চালকের আসনে থাকা এক কিশোরের মৃত্যু হয়। নিহত হাসান আলী (১৫) ইউনিয়নের গোয়ালপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। এ নিয়ে জেলায় একই দিনে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা তিনজনে দাঁড়াল।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন