বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নিহত ব্যক্তির নাম ছিরু মোল্লা (৫০)। তিনি জামালপুর ইউনিয়নের সাবনী গ্রামের আবদুস সামাদ মোল্লার ছেলে। আহত ব্যক্তি ছিরু মোল্লার ছেলে সোবহান মোল্লা (২৫)।

ট্রেন আসছে দেখতে না পেয়ে তাঁরা রেলগেট পার হচ্ছিলেন। একেবারে শেষ মুহূর্তে ট্রেন দেখতে না পেয়ে ছেলের জীবন বাঁচাতে তাঁকে ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে দেন বাবা। কিন্তু নিজের জীবন বাঁচাতে পারেননি।

প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজন বলেন, জামালপুর বাজার রেলগেটে কোনো প্রহরী বা রক্ষী নেই। নিজ দায়িত্বে রাস্তা পারাপার হতে হয়। আজ সকালে বাবা-ছেলে ছিরু মোল্লা ও সোবহান মোল্লা একসঙ্গে ট্রাক্টর নিয়ে যাচ্ছিলেন। চালকের আসনে ছিলেন ছেলে সোবহান। বাবা পাশেই বসে ছিলেন। ট্রেন আসছে দেখতে না পেয়ে তাঁরা রেলগেট পার হচ্ছিলেন। একেবারে শেষ মুহূর্তে ট্রেন দেখতে না পেয়ে ছেলের জীবন বাঁচাতে তাঁকে ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে দেন বাবা। কিন্তু নিজের জীবন বাঁচাতে পারেননি। ট্রেন তাঁকে কিছু দূর ধাক্কা দিয়ে নিয়ে যায়। ঘটনাস্থলেই মারা যান ছিরু মোল্লা। এ ঘটনায় ছেলেও আহত হয়েছেন।

রাজবাড়ী রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদ আলম বলেন, গোপালগঞ্জ-রাজশাহী রেলপথের বালিয়াকান্দি উপজেলার জামালপুর বাজার রেলগেটে দুর্ঘটনার কথা জানতে পেরেছেন। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন